পোশাক শিল্প

বুধবার | ২৬ জুলাই, ২০১৭ | ১১ শ্রাবণ, ১৪২৪ | ২ জিলক্বদ, ১৪৩৮

প্রচ্ছদ » অর্থ ও বাণিজ্য » পোশাক শিল্প » ঝিমিয়ে পড়েছে পোশাক কারখানা পরিদর্শন

ঝিমিয়ে পড়েছে পোশাক কারখানা পরিদর্শন

ঝিমিয়ে পড়েছে পোশাক কারখানা পরিদর্শন

ডিসেম্বর মাসের মধ্যে পোশাক কারখানাগুলো পরিদর্শনের কাজ শেষ করতে পারছে না সরকার। কবে নাগাদ তা শেষ করা যাবে সে বিষয়েও সুস্পষ্ট ধারণা নেই শ্রম মন্ত্রণালয়ের।

তারা বলছেন, লোক সংকটের কারণে কাজ এগোচ্ছে না, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে।

রোববার সচিবালয়ে গার্মেন্টস শিল্প বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটির চতুর্থ সভা শেষে শ্রমসচিব মিকাইল শিপার সাংবাদিকদের বলেন, “দেশে চার হাজারের মতো পোশাক কারখানা আছে। ডিসেম্বরের মধ্যে সবগুলো কারখানা পরিদর্শনের কাজ শেষ করা সম্ভব না। তবে আমরা পরিদর্শনের কাজ শুরু করতে যাচ্ছি।Female workers work at garments factory.

“কলকারখানা পরিদর্শনের জন্য দুইশ পরিদর্শক নিয়োগ দেয়ার কথা থাকলেও মাত্র ৩৭ জনকে নিয়োগ দিতে বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। বাকি পদগুলো সৃষ্টি করতে হবে, এ বিষয়ে কাজ চলছে।”

‘অ্যাকোর্ড’ ও ‘অ্যালায়েন্’স এক হাজার ৭৫০টি কারখানা পরিদর্শন করবে জানিয়ে সচিব বলেন, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০টি টিম আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক অ্যাসেসমেন্টের কাজ শুরু করবে। বাকি কারখানাগুলো সরকার নিজ উদ্যোগে পরিদর্শন করবে।

তবে কোন কারখানাগুলো অ্যাকোর্ড ও অ্যালায়েন্স পরিদর্শন করবে তা এখনো ঠিক হয়নি।

ইউরোপীয় ক্রেতাদের উদ্যোগে স্বাক্ষরিত ‘অ্যাকোর্ড অন ফায়ার অ্যান্ড বিল্ডিং সেফটি ইন বাংলাদেশ’ এবং আমেরিকার ক্রেতাদের উদ্যোগে স্বাক্ষরিত ‘বাংলাদেশ সেফটি অ্যালায়েন্স’ গঠন করা হয়।

‘অ্যাকোর্ড অন ফায়ার অ্যান্ড বিল্ডিং সেফটি ইন বাংলাদেশ’ নামে চুক্তিটি সংক্ষেপে ‘অ্যাকোর্ড’ নামে পরিচিত। এ চুক্তিতে এ পর্যন্ত ৮৪টি প্রতিষ্ঠান স্বাক্ষর করেছে।

অন্যদিকে উত্তর আমেরিকার বিশ্ববিখ্যাত পোশাক ব্র্যান্ড ওয়ালমার্ট ও গ্যাপসহ ১৭টি প্রতিষ্ঠান জোটবদ্ধ হয়েছে। ‘অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স সেফটি ইনিশিয়েটিভ’ সংক্ষেপে ‘অ্যালায়েন্স’ নামে পরিচিত।

আগামী ৭ সেপ্টেম্বর আইএলও’র কারিগরি সহায়তায় একটি কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে জানিয়ে সচিব বলেন, ওই বৈঠকে অংশ নিতে অ্যাকোর্ড এবং অ্যালায়েন্সকেও বলা হয়েছে।

“তারা বসে কলকারখানা পরিদর্শনে টেকনিক নির্ধারণ করবে যেন একইভাবে বাংলাদেশি স্ট্যান্ডার্ড বজায় রেখে সব প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করা হয়।”

মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, জাতীয় কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য আইএলও কারখানার ভবন ও অগ্নি নিরাপত্তা যাচাই, পরিদর্শন কার্ক্রম শক্তিশালীকরণ, পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ, পঙ্গু ও আহতদের পুনর্বাসন এবং বেটার ওয়ার্ক প্রোগ্রাম বাস্তবায়নকে অগ্রাধিকার হিসাবে চিহ্নিত করেছে।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এখন পর্যন্ত ৪৫টি ট্রেড ইউনিয়নকে নিবন্ধন দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে সভায় জানানো হয়, এই ধারা অব্যাহত থাকবে।

এছাড়া ট্রেড ইউনিয়ন নেতাদের মালিক কর্তৃক ছাঁটাই না করার বিষয়টি নিশ্চিত করতে সভায় আলোচনা হয়েছে বলে ওই কর্মকর্তা জানান।

তিনি বলেন, গত ৫ অগাস্ট বাণিজ্যমন্ত্রীর সভাপতিত্বে এক আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভায় বিজিএমইএ ও বিকেএমইএর নেতাদের ট্রেড ইউনিয়নের নেতাদের চাকরির নিশ্চয়তা বিধানের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এর আগে ছাঁটাই করা ট্রেড ইউনিয়নের নেতাদের চাকরিতে পুনবর্হালের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার প্রস্তারের আলোকে ‘বাংলাদেশ সেন্টার ফর ওমেন সলিডারিটি’ এবং ‘সোস্যাল অ্যাক্টিভিটিস ফর দা ইনভাইরনমেন্ট’র নিবন্ধনের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানান মিকাইল শিপার।

এছাড়া শ্রমিক নেতা আমিনুল ইসলামকে হত্যার সঙ্গে জড়িতদের ধরতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অভিযান চালাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

সরকারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক শ্রমিক নেতা কল্পনা আক্তার ও বাবুল আক্তারের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার করতে ঢাকা জেলা প্রশাসককে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলে জানান মিকাইল শিপার।

তিনি বলেন, জিএসপি সুবিধা পুনর্বহালের জন্য সরকারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের অগ্রগতি নিয়ে সভায় বিস্তারিতভাবে পর্যালোচনা করা হয়েছে।

গতি বাড়াতে নতুন কমিটি গঠন

মন্ত্রিসভা কমিটির কার্যক্রমকে ত্বরান্বিত করার জন্য বাণিজ্য সচিবের নেতৃত্বে একটি স্ট্যান্ডিং কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানান শিপার।

তিনি বলেন, শ্রম, পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্র সচিব এবং অর্থ, জনপ্রশাসন, স্থানীয় সরকার বিভাগ বা অন্য কোনো মন্ত্রণালয় ও বিভাগের অতিরিক্ত সচিব পর্যায়ে সিনিয়র সচিব/সচিবের প্রতিনিধি এক কমিটিতে সদস্য হিসাবে থাকবেন।

শ্রমমন্ত্রী রাজীউদ্দিন আহমেদ রাজুর সভাপতিত্বে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর, ত্রাণমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া, নৌমন্ত্রী শাজাহান খান, বাণিজ্যমন্ত্রী জি এম কাদের, শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান ছাড়াও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না। আবশ্যিক *

*


9 − = 3

আপনি চাইলে এই এইচটিএমএল ট্যাগগুলোও ব্যবহার করতে পারেন: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>