জাতীয়

বৃহস্পতিবার | ১৯ অক্টোবর, ২০১৭ | ৪ কার্তিক, ১৪২৪ | ২৮ মহররম, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » খবর » জাতীয় » রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত: ৩

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত: ৩

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত: ৩

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসে মহড়া দেওয়াকে কেন্দ্র করে শিবির-ছাত্রলীগ ও পুলিশের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে এক সাধারণ শিক্ষার্থীসহ শিবিরের দুই নেতা আহত হয়েছেন। আজ রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও শিবিরের মতিহার হল শাখার সভাপতি আবু সুফিয়ান, একই বিভাগের শিক্ষার্থী ও শিবিরের বিজ্ঞান অনুষদ শাখার সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন এবং সাধারণ শিক্ষার্থী ফিরোজ আহমেদ (ভাষা বিভাগ)। এঁদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ সুফিয়ানকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর পিঠের বাঁ পাশে গুলি লেগেছে। অপরদিকে ইমরান হোসেনকে রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ফিরোজকে প্রাথমিক চিকিত্সা দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়,  দুপুর পৌনে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের পেছনে দলীয় টেন্টে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা অবস্থান করছিলেন। এ সময় কয়েকজন শিবিরকর্মী টেন্টের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় টেন্টে অবস্থানরত ছাত্রলীগের কর্মীরা তাঁদের ধাওয়া দেন। এরপরই গোলাগুলি শুরু হয়। শিবিরের কর্মীদের কেউ কেউ এ সময় কলাভবনের ভেতরে আশ্রয় নেন। অনেকে বিভিন্ন দিকে ছুটে যান। ছাত্রলীগের দাবি, শিবিরের কর্মীরা পালিয়ে যাওয়ার সময় কয়েকটি গুলি ছোড়েন। ওই গুলির শব্দে গ্রন্থাগারের সামনে থাকা পুলিশ কয়েকটি ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এর কিছুক্ষণ পর ছাত্রলীগ ও পুলিশ একসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদুল্লাহ কলাভবনের সামনে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য করে ১০-১২টি গুলি ছোড়ে। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহম্মেদকে প্রকাশ্যে গুলি ছুড়তে দেখা যায়। এতে আবু সুফিয়ান ও  ইমরান হোসেন গুলিবিদ্ধ এবং ভাষা বিভাগের শিক্ষার্থী ফিরোজ আহত হন। এ ঘটনায় পুলিশ কাউকে আটক করতে পারেনি।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান বলেন, ‘শিবির পরিকল্পিতভাবে ক্যাম্পাসে আতঙ্ক সৃষ্টির উদ্দেশ্যে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়েছে। তবে ছাত্রলীগের প্রতিরোধের কারণে তারা ক্যাম্পাসে টিকতে পারেনি।’

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রশিবিরের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন ইয়াহইয়া বলেন, ‘আমাদের কর্মীরা শান্তিপূর্ণভাবে ক্যাম্পাসে অবস্থান করছিল। ছাত্রলীগের ক্যাডাররা কোনো কারণ ছাড়াই আমাদের ওপর গুলি চালিয়েছে। এ ঘটনায় আমাদের দুজন নেতা গুলিবিদ্ধ হয়েছে।’

নগরের মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম আবদুস সোবহান জানান, ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি বর্তমানে পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তারিকুল হাসান বলেন, ক্যাম্পাসের সার্বিক নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। বিভিন্ন পয়েন্টে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

এদিকে গোলাগুলির ছবি তুলতে গিয়ে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের কাছে লাঞ্ছিত হয়েছেন নিউএইজ পত্রিকার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি নাজিম মৃধা। পরে এ ঘটনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে এসে দুঃখ প্রকাশ করেন এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা যেন না ঘটে, তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন