প্রধান খবর

বুধবার | ২৬ জুলাই, ২০১৭ | ১১ শ্রাবণ, ১৪২৪ | ২ জিলক্বদ, ১৪৩৮

প্রচ্ছদ » প্রধান খবর » মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারে টোল নিয়ে মারামারি

মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারে টোল নিয়ে মারামারি

মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারে টোল নিয়ে মারামারি

যাত্রাবাড়ী-গুলিস্থান মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারে টোলের পরিমাণ নিয়ে আদায়কারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মারামারি বেঁধেছে গাড়িচালকদের।

শনিবার দুপুরে এই মারামারির পর টোল ছাড়াই গাড়ি চলাচল করছে শুক্রবার উদ্বোধন হওয়া দেশের দীর্ঘতম এই ফ্লাইওভারে।

পুলিশের ওয়ারী থানার উপপরিদর্শক আনোয়ার হোসেন  বলেছেন,টোলের বিষয়ে আলোচনা করে পরে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে আদায়কারী প্রতিষ্ঠান ওরিয়ন গ্রুপের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

পিপিপির ভিত্তিতে নির্মিত এই উড়াল সড়কটি নির্মাণ ও পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছে ওরিয়ন ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুক্রবার উদ্বোধনের পর এটি খুলে দেয়া হয়।সকাল টোল আদায়ের হার নিয়ে গুলিস্থান টোল প্লাজায় আদায়কারীদের সঙ্গে গাড়ি চালকদের মধ্যে বাক-বিতণ্ডা থেকে মারামারি বাঁধে বলে পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়।

গাড়িচালকরা অতিরিক্ত টোল আদায়ের অভিযোগ তুলে টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন বলে পুলিশ ও স্থানীয়রা জানিয়েছে।

টোল প্লাজার পাশের এক দোকানি বিজয় বলেন, “সকাল ১১টার দিকে কয়েকটি গাড়ির চালকের সঙ্গে টোল প্লাজার কর্মচারীদের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়।”

এসআই  আনোয়ার  বলেন, “গাড়ির চালকরা বেশি টোল আদায়ের অভিযোগ করে টাকা দিতে না চাইলে তাদের সঙ্গে টোল প্লাজার কর্মকর্তাদের কথাকাটাকাটি হয় এবং উত্তেজনাকর পরিস্থিতি হয়।

“এতে গাড়ির জট বাড়তে থাকলে ওরিয়ন গ্রুপের কয়েকজন কর্মকর্তা টোল আদায় ছাড়াই গাড়ি ছাড়ার সিদ্ধান্ত দেন। টোলের বিষয়ে আলোচনার করে আবার সিদ্ধান্ত নেবেন তারা।

ফ্লাইওভার উদ্বোধন নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে টোলের হার দেয়া হয়েছে- টেইলার ২০০ টাকা, ট্রাক ও বাস ১৫০ টাকা, মিনি বাস ১০০ টাকা, পিকআপ ৭৫ টাকা, মাইক্রোবাস ৫০ টাকা, জিপ ৪০ টাকা, প্রাইভেট কার ৩৫ টাকা, অটোরিকশা ১০ টাকা ও দুই চাকার বাহন ৫ টাকা।

তবে টোল প্লাজায় টানানো তালিকায় দেখা যায়, বাস/মিনি বাস ও ট্রাক (চার চাকা) ২৬০, পিকআপ ১৩০ টাকা, মাইক্রোবাস ৮৫ টাকা, অটোরিকশা ১৮ টাকা ও মোটরসাইকেল ১০ টাকা।

নারায়ণগঞ্জের উৎসব পরিবহনের চালক সোহরাব হোসেন বলেন, “পত্রিকায় প্রকাশিত হারের চেয়ে টোল বেশি নেয়া হচ্ছে। আমরা কেন বেশি টাকা দেব?”

এবিষয়ে জানতে চাইলে নাম জানাতে অস্বীকার করে টোল প্লাজার কর্মচারীরা বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে তালিকা অনুযায়ী টোল আদায় করছেন তারা। চালকদের অভিযোগের বিষয়ে তাদের কিছু করার নেই।

দোকানি বিজয় বলেন, “অ্যাম্বুলেন্সের জন্য টোল মওকুফ থাকলেও কর্মচারীরা সকালে কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্সের কাছ থেকে টোল নিয়েছে।

এসব বিষয়ে কথা বলতে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কোনো কর্মকর্তাকে ঘটনাস্থলে পাওয়া যায়নি।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না। আবশ্যিক *

*


− 1 = 5

আপনি চাইলে এই এইচটিএমএল ট্যাগগুলোও ব্যবহার করতে পারেন: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>