উৎসব

বৃহস্পতিবার | ১৯ অক্টোবর, ২০১৭ | ৪ কার্তিক, ১৪২৪ | ২৮ মহররম, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » খবর » উৎসব » বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সারা দেশে পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আযহা

বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সারা দেশে পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আযহা

বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সারা দেশে পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আযহা

যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য ও বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ত্যাগের মহিমায় উজ্জীবিত হয়ে সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আযহা । প্রতিবারের মতো এবারো বাংলাদেশের বৃহত্তম ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে। রাজধানীতে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে। এতে ইমামতি করেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব মাওলানা মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন।

রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ এডভোকেট, মন্ত্রিসভার সদস্য, বিচারপতি, কূটনীতিক ও রাজনীতিকসহ সর্বস্তরের নাগরিকরা জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের প্রধান জামাতে নামাজ আদায় করেন । এ ছাড়াও রাজধানীতে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে পাঁচটি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

ঈদুল আযহা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ এডভোকেট, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া পৃথক বাণীতে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। বাণীতে তারা মুসলিম সম্প্রদায়ের সুখ ও সমৃদ্ধিও কামনা করেন।

ঈদের নামাজের পরপরই বিভিন্ন স্থানে শুরু হয়ে যায় পশু কোরবানি। এর আগে মঙ্গলবার সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বেশিরভাগ দেশে পবিত্র ঈদুল আযহা ঈদ উদযাপিত হয়।

সারাবিশ্বের মুসলমানের কাছে ঈদুল আযহা কোরবানির ঈদ হিসেবে পরিচিত। এদিন মুসলমানরা জামাতে নামাজ আদায় করেন এবং সাধ্য অনুযায়ী গরু, ছাগল, ভেড়া, দুম্বা, উট ইত্যাদি পশু কোরবানির মাধ্যমে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের চেষ্টা করেন।

প্রায় ৫,০০০ বছর আগে এ দিনে মহান আল্লাহর নির্দেশে তার সন্তুষ্টি লাভের জন্য নবী হযরত ইব্রাহিম (আ.) তার প্রিয়তম সন্তান হযরত ইসমাইল (আ.)-কে কোরবানি করতে উদ্যত হয়ে আত্মত্যাগের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। পরে আল্লাহর ইশারায় একটি দুম্বা কোরবানির মাধ্যমে সে নির্দেশ বাস্তবায়িত হয়।

তখন থেকেই মুসলিম জাতির পিতা হযরত ইব্রাহিম (আ.)-এর ত্যাগের নিদর্শন হিসেবে আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য প্রতি বছর গৃহপালিত পশু কোরবানির বিধান চালু হয়। পরে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব ও সর্বশেষ নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর মাধ্যমে এই কোরবানি প্রত্যেক হাজীর জন্য বাধ্যতামূলক (ওয়াজিব) করা হয়। এ ছাড়া, সামর্থ্যবান প্রত্যেক মুসলমানকে কোরবানি করার জন্য ব্যাপক তাগিদ দেয়া হয়েছে।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন