প্রধান খবর

শনিবার | ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ | ৮ আশ্বিন, ১৪২৪ | ২ মহররম, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » প্রধান খবর » নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকার গঠনে বিরোধীদলের সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকার গঠনে বিরোধীদলের সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকার গঠনে বিরোধীদলের সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় জাতির উদ্দেশ্যে রেডিও টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে তিনি বলেন, আমরা নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকার গঠন করতে পারি, যাতে একটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠান করা যায়। এ লক্ষ্যে আমি বিরোধী দলের কাছে প্রস্তাব করছি- তাদের সংসদ সদস্যদের মধ্য থেকে পছন্দ মতো নামের তালিকা দেয়ার জন্য। আমি বিরোধী দলের নেতাকে অনুরোধ করছি তিনি যেন আমার এ আহ্বানে সাড়াদেন। আমরা গণতন্ত্রকে সুপ্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে একটি অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে চাই।

শেখ হাসিনা বলেন, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে।

তিনি বলেন, ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মতো জগদ্বল পাথর জাতির ঘাড়ে চেপে বসেছিল। তখন মানুষ গণতান্ত্রিক অধিকার হারিয়ে ফেলেছিলো। ২০০৯ সালের নির্বাচনের পর আমরা দেশে গণতন্ত্রকে সাংবিধানিক রূপ দিয়েছি।

মহাজোট সরকারের উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন মানুষ খেয়ে পরে ভালো আছে। আগে মানুষ তাদের নিত্যদিনের আয় দিয়ে দুই কেজি চাল কিনতে পারতো না। বর্তমানে তারা ১০ কেজি চাল কিনতে পারছেন। মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। সর্বক্ষেত্রে মানুষের আয় বেড়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে জাতি রক্ত দিয়ে স্বাধীনতা আনতে পারে,  সে জাতির উন্নয়ন কোনোভাবেই ঠেকানো সম্ভব নয়। তিনি বলেন, মহাজোট সরকারের অন্যতম নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি যুদ্ধাপরাধীর বিচার ও দুর্নীতিমুক্ত দেশ গঠন করা।  আমরা আমাদের প্রতিশ্রুতি রেখেছি। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের আওতায় আনা হয়েছে। দুর্নীতি কমেছে। বিশ্বে আজ আমরা মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছি।

শেখ হাসিনা বলেন, ছুরি, দা, খুন্তা, কুড়াল নিয়ে মানুষ মারার নির্দেশ প্রত্যাহার করার জন্য আমি বিরোধীদলীয় নেতার প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। শান্তি ও ঐক্যের পথই দেশ ও জাতির জন্য কল্যাণ বয়ে আনবে। জনতার উপর আস্থা রাখুন, সন্ত্রাসের পথ পরিহার করুন। আপনারা কি চান তা সংসদে এসে বলুন। আলোচনা করুন। আলোচনার দরজা সবসময় আমাদের পক্ষ থেকে উন্মুক্ত আছে।

তিনি বলেন, বোমা মেরে, আগুন জ্বালিয়ে জনগণের জান-মালের ক্ষতি করবেন না। কোরান শরীফ পুড়িয়ে, মসজিদে আগুন দিয়ে ইসলাম ধমের্র অবমাননা করা বন্ধ করুন। মাদ্রাসায় বোমা তৈরির কাজে ব্যবহার করতে এতিম বাচ্চাদের লাশ বানানো বন্ধ করুন। নিরীহ পথচারী আর গরিব বাস ড্রাইভারকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারা বন্ধ করুন। মানুষকে শান্তিতে থাকতে দিন।

নির্দলীয় সরকার পদ্ধতি পুনর্বহালের দাবিতে আন্দোলনরত বিএনপি নেতারা ২৪ অক্টোবরের পর দেশ অচল করে দেয়ার হুমকি দিয়ে আসছেন।

এ দাবিতে ২৫ অক্টোবর রাজধানীতে জনসভার ঘোষণা দিয়ে সেদিন দা, কুড়ালসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে দলীয় কর্মীদের প্রস্তুত থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকা। বিরোধী দলীয় নেতাও ওই জনসভা করার সিদ্ধান্তে অনড়।

পাশাপাশি ‘সময় থাকতে’ আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে দেশে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিবেশ তৈরি করার দাবি জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

আলোচনায় বসার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ভাষণে বলেন, বিএনপি’র পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কথা বলা হচ্ছে।

তিনি বলেন, বিএনপির পক্ষ থেকে জাতীয় সংসদে মুলতবি প্রস্তাব দিলেন। যখন আলোচনায় আমরা রাজি হলাম সেই প্রস্তাব প্রত্যাহার করে নিলেন। একবার বলছেন তত্ত্বাবধায়ক সরকার, আরেকবার নির্দলীয়, আবার বলছেন হাসিনামুক্ত। নানা অবাস্তব কথা বলে যাচ্ছেন। মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন।

সুস্পষ্ট প্রস্তাব দেয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রয়োজনে আবারো মুলতবি প্রস্তাব দিন জাতীয় সংসদে এবং সুস্পষ্টভাবে বলুন আপনারা কি চান।

প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণের শেষাংশে আবেগঘন কণ্ঠে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট তার পরিবারের সদস্যদের নিহত হওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে দেশবাসীর উদ্দেশে বলেন, স্বজন হারানোর ব্যথা বুকে নিয়ে আমি বেঁচে আছি। একজন মানুষের মৃত্যুর শোক সহ্য করা অনেকের পক্ষে সম্ভব হয় না। সেখানে পরিবার ও আত্মীয় স্বজনের ১৮ জনের মৃত্যুর বেদনা আমাকে বয়ে বেড়াতে হচ্ছে। আমি চাই আপনারা ভাল থাকুন, আপনাদের আগামী দিনগুলো সুন্দর হোক।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না। আবশ্যিক *

*


7 − 5 =

আপনি চাইলে এই এইচটিএমএল ট্যাগগুলোও ব্যবহার করতে পারেন: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>