Azizul Bashar
সম্পাদকীয়

সোমবার | ২০ আগস্ট, ২০১৮ | ৫ ভাদ্র, ১৪২৫ | ৮ জিলহজ্জ, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » মতামত » সম্পাদকীয় » মারিয়ারা পৃথিবীর সর্বত্রই মা হারা

মারিয়ারা পৃথিবীর সর্বত্রই মা হারা

মারিয়ারা পৃথিবীর সর্বত্রই মা হারা

আমরা শুধুমাত্র শিশু অধিকার দিয়ে আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে কথা বলছি। কিন্তু মারিয়া বুলগেরিয়ান মায়ের সন্তান কিন্তু বেড়ে উঠেছে গ্রীসে রোমা দম্পতির কাছে। Mariaএই সংবাদ বিশ্ববাসীর সবার নজর কেড়েছে এখন। মারিয়ার মা সাসদা রুজেবা দাবী করেছেন তিনি মারিয়াকে উপহার দিয়েছেন ঐ দম্পতিকে কেননা তার কাছে কোন খাবার ছিলনা তাকে খায়ানোর মত।সে বার বার দাবী করেছে সে তার কন্যা সন্তানকে বিক্রয় করেনি টাকার বিনিময়ে। মারিয়ার বয়স ৫ থেকে ৬ বছর । যেখানে সারা বিশ্বে শিশু ও নারী অধিকার নিয়ে এত সোচ্ছার সেখানে এখন ও হাজারো মারিয়াকে বঞ্চিত হতে হয় মায়ের আদর স্নেহ থেকে। গ্রীস পুলিশ এ বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছেন ডি এন এ টেষ্টের মাধ্যমে যে মারিয়া রোমা দম্পতির সন্তান নয়। তবে এখন পর্যন্ত নিম্চিত হতে পারেননি যে ঐ বুলগেরিয়ান রুজেবাই মারিয়ার মা। আমি মনে করি শিশু অধিকারের প্রথম শর্ত হওয়া উচিত শিশু তার মা-বাবার পরিচয় জানতে পারবে। পৃথিবীর কোন শিশুই যেন তার বাবা মায়ের পরিচযের বাহিরে না থাকে।কোন মা যখন তার সন্তানকে পরিচয়হীন করে রাখে বা রাখতে বাধ্য হয় তা কিন্তু ঐ সমাজের নারীর অধিকারের ইসুকে সামনে নিযে আসে। একজন মা কতটা অসহায় হলে সে তার সন্তানকে অন্যের কাছে বিক্রি করে দেয় তা বুলগেরিয়ানরা ভালই বোঝেন। কিন্তু তা নিয়ে সকল সমাজ কতটা উদ্ভিগ্ন তা প্রশ্নের যোগ্য। আইন হয়ত এমন চেষ্টা করবে খুঁজে বের করবে রুজেবা হয়ত টাকার লোভে তার মারিয়াকে বিক্রি করে দিয়েছে।যদি সেই হয়ে থাকে মারিয়া প্রকৃত মা। যদি তাই প্রমানিত হয় তাহলে মারিয়ার শাস্তি হওয়া বাঞ্চনীয়।কিন্তু আমাদের এ বিষয়ে সচেতন হওয়া এখনই জরুরী যে কোন মা যেন তার সন্তানকে অনিচ্ছায় মাতৃহারা করতে বাধ্য না হয়।আমাদের উচিত সকল মারিয়াদের কে তার মায়ের কোলে বেড়ে উঠার সুযোগ করে দেওয়া।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


মন্তব্য করুন