রাজনীতি

বুধবার | ২৬ জুলাই, ২০১৭ | ১১ শ্রাবণ, ১৪২৪ | ২ জিলক্বদ, ১৪৩৮

প্রচ্ছদ » খবর » রাজনীতি » ককটেল বিস্ফোরন ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের মধ্য দিয়ে বগুড়ায় হরতাল পালিত

ককটেল বিস্ফোরন ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের মধ্য দিয়ে বগুড়ায় হরতাল পালিত

ককটেল বিস্ফোরন ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের মধ্য দিয়ে বগুড়ায় হরতাল পালিত

গুড়ায় ১৮ দলের ডাকা তিন দিনের হরতালের শেষ দিনে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং অগ্নি সংযোগেরব মধ্য দিয়ে পালিত।

আজ সকালে  বগুড়া শহরের বউ বাজারে ককটেল বিষ্ফোরন, শাজাহানপুরে ঢাকা – বগুড়া মহাসড়ক অবরোধ করে রাস্তায় টায়ার জালিয়ে আগুন দেওয়া হয়। এ ছাড়া মঙ্গলবার রাতে শহরের মফিজ পাগলার মোড়, ঝাউতলাসহ বিভিন্ন স্থানে ককটেল বিষ্ফোরনে আতংক সৃষ্টি হয়। সেই সাথে বিভিন্ন স্থানে কমপক্ষে ৫-৬টি মোটরসাইকেল ভাংচুর ও আগুন দেয়া হয়েছে।

বুধবারের হরতালে সকাল থেকেই রাস্তা ফাঁকা। শহরের রাস্তায় কোন ধরনের যানবাহন দেখা যায় নি। শিল্পকারখানা,ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। সরকারী বেসরকারী অফিস খুললেও সেখানে কর্মকর্তা কর্মচারী ছাড়া দর্শনার্থীদের দেখা যায় নি। সকালে শহর বিএনপি, জেলা যুবদল, ছাত্রদলের পৃথক পৃথক মিছিল সাতমাথা সহ শহরের বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিন করে। অপরদিকে শিবিরের উদ্যোগে শহরের খান্দার, চারমাথা, তিনমাথা, সাবগ্রাম, পিটিআই মোড়,উপশহর, হাকিরমোড় সহ বিভিন্ন পয়েন্টে মিছিল করেছে হরতাল সমর্থকরা। শহরে পুলিশ,র‌্যাবের সাথে বিজিবির যৌথ টহল দেখা যায়। বিকেল ৩টায় শহরের সাতমাথায় সমাবেশের আয়োজন করে ১৮ দল। এতে জেলা বিএনপির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম জামায়াতের জেলা আমীর শাহাবুদ্দিন সহ জোটের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

হরতালের সমর্থনে ব্যাপক শো ডাউন করেছে জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্রশিবির। বিনা বাধায় ১ বছর পর শহরে কয়েক হাজার নেতাকর্মী নিয়ে সকালে বিশাল সমাবেশ ও মিছিল হয়েছে। এসময় বিজিবির্,র‌্যাব ও পুলিশ বাহিনী ছিল সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায়। শহরের নবাববাড়ী রোডস্থ শহর জামায়াত অফিসের সামনে সকাল ১০টা থেকে সমাবেশ শুরু হয়। এতে শহরের বিভিন্ন এলাকা থেকে ৫ সহ্রস্রাধিক নেতাকর্মী মিছিল নিয়ে যোগ দেন। পরে বিশাল মিছিল শহরের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রাস্তা ঘুরে জিরো পয়েন্ট সাতমাথা হয়ে আবার শহর অফিসের সামনে সমাবেশে মিলিত হয়।‌এ সময় বক্তব্য রাখেন জেলা জামায়াতের আমীর অধ্যক্ষ শাহাবুদ্দিন, নায়েবে আমীর মাওলানা আলমগীর হোসাইন, সহকারী সেক্রেটারী আবিদুর রহমান, শ্রমিক কল্যান সভাপতি আব্দুল মতিন, শহর শিবিরের সভাপতি আলাউদ্দিন সোহেল প্রমুখ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,সকাল ৭টায় ধুনট উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের নলডাঙ্গা মোড়ে আ’লীগ কর্মীরা লাঠিসোটা নিয়ে হামলা করলে দু’শিবির কর্মী নজরুল ইসলাম (২৩) ও কামাল (২০) আহত হয়। তাদের স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তারা ১৮ দলের হরতালের মিছিলে যোগ দিতে ধুনট সদরে যাচ্ছিল। ধুনট উপজেলা ১৮ দলের উদ্যোগে উপজেলা সদরে সকাল ৮টায় বিরাট মিছিল বের হয়। মিছিল শেষে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপি সভাপতি তৌহিদুল আলম মামুন, পৌর সভাপতি আলিমুদ্দিন হারুন, উপজেলা জামায়াতের আমীর রেজাউল করিম, মাওলানা শহিদুল ইসলাম,আব্দুর রহিম প্রমুখ। সবধরনের দোকানপাট, যানবাহন বন্ধ রয়েছে।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না। আবশ্যিক *

*


− 4 = 3

আপনি চাইলে এই এইচটিএমএল ট্যাগগুলোও ব্যবহার করতে পারেন: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>