জাতীয়

শুক্রবার | ১৭ নভেম্বর, ২০১৭ | ৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ | ২৭ সফর, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » খবর » জাতীয় » সিডরের দুঃখময় স্মৃতি আজও বরগুনাবাসীকে তাড়া করে ফিরে

সিডরের দুঃখময় স্মৃতি আজও বরগুনাবাসীকে তাড়া করে ফিরে

সিডরের দুঃখময় স্মৃতি আজও বরগুনাবাসীকে তাড়া করে ফিরে

আজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর, ২০০৭ সালের এই দিনে স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ সামুদ্রিক ঝড় ”সিডর” আঘাত হানে বরগুনাসহ দেশের উপকূলীয় এলাকায়। ছয় বছর পেরিয়ে গেলেও সেই স্মৃতি আজও ভুলতে পারেনি বরগুনার মানুষ। স্বজন, সম্বল সব হারানো মানুষগুলো ফিরে যেতে পারেনি তাদের স্বাভাবিক জীবনে। একটু মাথা গোঁজার ঠাঁই আর দু’বেলা দু’মুঠো খাবারের জন্য আজও নিরন্তর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। বরগুনার লতাকাটা, আয়লাপাতাকাটা, ছোনবুনিয়া, কুমিরমারা, পদ্মা, বুড়িরচর, সোনাতলা, নিশানবাড়ীয়া এলাকায় সরেজমিন পরিদর্শনকালে এ চিত্র লক্ষ্য করা গেছে।

ঘড়ির কাটায় তখন রাত পৌনে ৮টা। মহাবিপদ সংকেতের কথা শুনে আতংকিত এলাকার মানুষ। গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি সাথে বইছে দমকা হাওয়া। সচেতন কিছু মানুষ আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে শুরু করলেও বেশীর ভাগ মানুষ থেকে যায় বাড়ীতে। রাত ১০ টার দিকে প্রবল বাতাসের সাথে যুক্ত হল পানি প্রবাহ। আঘাত হানল প্রলয়ংকরী ”সিডর”। নিমিষেই উড়ে গেল ঘর-বাড়ী ও গাছ-পালা। বঙ্গোপসাগরের সব পানি যেন যমদুত হয়ে ভাসিয়ে নিল হাজার হাজার মানুষ। মাত্র কয়েক মিনিটে লন্ড ভন্ড হয়ে গেল গোটা এলাকা। যে যেভাবে পারলেন ঝাপিয়ে পড়লেন বাঁচার সংগ্রামে। পরের দিন দেখা গেল চারিদিকে শুধুই ধ্বংসলীলা। উদ্ধার করা হল লাশের পর লাশ। দাফনের জায়গা নেই, রাস্তার পাশে গণকবর করে চাপা দেওয়া হল বহু হতভাগার লাশ। স্বজন আর সম্বল হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেল বরগুনার কয়েক লাখ মানুষ। সিডরের আঘাতে বরগুনায় প্রাণ হারান এক হাজার ৫০১ হন মানুষ। ৩০ হাজার ৪৯৯ টি গবাদী পশু ও ছয়লাখ ৫৮ হাজার ২৫৯টি হাঁস-মুরগী মারা যায় ”সিডরে”। জেলার দুই লাখ ১৩ হাজার ৪৬১ টি পরিবারের সবাই কমবেশী ক্ষতির শিকার হন। সম্পূর্ন ভাবে গৃহহীণ হয়ে পরে জেলার ৭৭ হাজার ৭৫৪ টি পরিবার। এছাড়া অংশিক ক্ষতি হয়েছে আরও এক লাখ ১২ হাজার ৩১ টি বসত ঘরের। এছাড়া রাস্তা ঘাট, ব্রীজ- কালভার্ট, বিদ্যুৎসহ সব ক্ষেত্রে ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন