আন্তর্জাতিক

বৃহস্পতিবার | ২৩ নভেম্বর, ২০১৭ | ৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ | ৩ রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » খেলাধুলা » আন্তর্জাতিক » ব্যাটিং জাদুকরের পার্টিতে তারকাদের মিলনমেলা

ব্যাটিং জাদুকরের পার্টিতে তারকাদের মিলনমেলা

ব্যাটিং জাদুকরের পার্টিতে তারকাদের মিলনমেলা

কালো স্যুট আর সাদা শার্টে শচিনকে লাগছিল বরাবরের মতোই ব্যক্তিত্ববান। শচিনের সঙ্গে মিলিয়ে সহধর্মিণী অঞ্জলিও সেজেছিলেন ঝলমলে কালো পোশাকে। অনুষ্ঠানের আয়োজক হিসেবে অনুষ্ঠানস্থল আন্ধেরির এক হোটেলে সবার আগে এলেন তারা দুজনেই। একটু পরেই এলেন ব্যাটিং কিংবদন্তী এবং ভারতের প্রথম লিটল মাস্টার সুনীল গাভাস্কার। কিছুক্ষণ বাদে যোগ দিলেন ভারতীয় দলের প্রধান নির্বাচক সন্দিপ পাতিল এবং সাবেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্তও।

চল্লিশ বছরের জীবনের অর্ধেকেরও বেশি সময় কাটিয়েছেন সতীর্থদের সাথে। শচিন টেন্ডুলকারের দেয়া বিদায়ী ডিনার পার্টিতেও শত তারার মাঝেও উজ্জ্বল হয়ে ফুটে রইলেন তার সতীর্থরাই। ফলে ব্যাটিং জাদুকরের বিদায়ী পার্টি যেন ভারতের সাবেক-বর্তমান ক্রিকেটারদের এক মিলনমেলায় পরিণত হয়। ক্রিকেটারদের পাশাপাশি সেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজনীতি, ব্যবসা আর ফিল্ম পাড়ার বিখ্যাত সব ব্যক্তিরাও।

এরপর একে একে আসতে থাকলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স মালিক এবং শিল্পপতি মুকেশ আম্বানি, সহধর্মিণী নীতা আম্বানি, সাহারা গ্রুপের মালিক সুব্রত রায় সাহারার মতো বিখ্যাত ব্যবসায়ীরা।

সঙ্গীত শিল্পী আশা ভোসলে আসলেন। একে একে এলেন শচিনের পুরনো সতীর্থ সৌরভ গাঙ্গুলী, ভিভিএস লক্ষণ, গৌতম গম্ভীররা। বহুদিন ধরে ফর্মহীনতায় ভুগতে থাকা বিরেন্দর শেবাগ এলেন সস্ত্রীক। বান্ধবী গীতা বাস্রাকে সঙ্গে নিয়ে এলেন হরভজন সিং। অনুষ্ঠানের মূল সঞ্চালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে এলেন শচিনের বহু বছরের ভক্ত এবং শুভাকাঙ্ক্ষী রবি শাস্ত্রীও।

দীর্ঘ চব্বিশ বছরের ক্যারিয়ার শেষে মাত্র তিনদিন আগে ক্রিকেটকে বিদায় জানানো শচিনের আহ্বানে সাড়া দিয়ে এরপর আসতে শুরু করলেন ভারতীয় দলের বর্তমান খেলোয়াড়রাও। স্ত্রী সাক্ষী সিং রাওয়াতকে সাথে নিয়ে প্রবেশ করলেন হাস্যোজ্জ্বল মহেন্দ্র সিং ধোনি। মোহাম্মদ সামী, বিরাট কোহলি, আজিঙ্কা রাহানে, রোহিত শর্মা, যুবরাজ সিংরাও যোগ দিলেন ধোনির সাথে।

শচিনের শেষ টেস্টের সাক্ষী হতে ভারতে আসা ব্রায়ান লারা ও উপস্থিত ছিলেন টেন্ডুলকারের ছেলেবেলার কোচ রমাকান্ত আর্চরেকারও।

কঠোর নিরাপত্তার চাদরে মোড়া অনুষ্ঠানে ছিলেন রাজনৈতিক অঙ্গনের পরিচিত মুখ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শারদ পাওয়ার , শিবসেনা নেতা রাজ ঠাকরে এবং মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী পৃথ্বিরাজ চাভানও।শচিন ভক্ত অমিতাভ বচ্চন থেকে শুরু করে আমির খান, করন জোহরসহ মুম্বাইয়ে জন্ম নেয়া অভিনেতা রাহুল বোসও ছিলেন অনুষ্ঠানে।

ভবিষ্যত্ পরিকল্পনা কি বিদায় পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে শচিন মজা করে বলেছিলেন, ‘২৪ বছর শেষে আমাকে অন্তত ২৪ দিন তো ভাবতে সময় দিন। কিছুদিন অন্তত বিশ্রাম তো নিই।’বিদায় অনুষ্ঠানে ক্যামেরার ফ্লাশলাইট আর গণমাধ্যম কর্মীরা যেভাবে শচিনের পেছনে হন্যে হয়ে ছুটলো, তাতে বোঝা গেল পরিপূর্ণ বিশ্রাম পাওয়াটা শচিনের জন্য কঠিনই হবে হয়তো!

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন