এই মুহূর্তে

বৃহস্পতিবার | ২৩ নভেম্বর, ২০১৭ | ৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ | ৩ রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » এই মুহূর্তে » আগ্নেয়গিরির অগ্ণুৎপাতে নতুন দ্বীপের জন্ম

আগ্নেয়গিরির অগ্ণুৎপাতে নতুন দ্বীপের জন্ম

আগ্নেয়গিরির অগ্ণুৎপাতে নতুন দ্বীপের জন্ম

আগ্নেয়গিরির অগ্ণুৎপাতে প্রশান্ত মহাসাগরের বুকে জেগে উঠেছে নতুন এক দ্বীপ৷ মাত্র ২০০ মিটার ব্যাসযুক্ত এই সদ্যোজাত দ্বীপের অবস্থান টোকিওর দক্ষিণ নোশিনোশিমা দ্বীপের (বোননি দ্বীপপুঞ্জ) অদূরেই । জাপানের উপকূল রক্ষী(জেসজি) এবং ভূমিকম্প-বিশেষজ্ঞদের তরফে এ কথা জানানো হয়েছে।

গতকালই এক বিজ্ঞপ্তিতে  জেসজির তরফে থেকে বলা হয়,এই দ্বীপপুঞ্জও তার আশপাশের এলাকায় সমুদ্রের তলদেশ থেকে অগ্ণুৎপাতের আশঙ্কায় সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছিল৷ সেই মতে বুধবার থেকেই শুরু হয় অগ্ণুৎপাত৷ মুর্হূতের মধ্যেই প্রায় ৬০০ মিটার উচ্চতার ঘন,কালো ধোয়ায় ভরে যায় নোশিনোশিমা দ্বীপের দক্ষিণপ্রান্ত। ধোয়ার সঙ্গেই বেরিয়ে আসতে থাকে ছাই,পাথরের টুকরো জাতীয় আগ্ণেয় পদার্থ।সুউচ্চ ধোয়ার নিচেই সঞ্চিত হতে শুরু করে পাথরের টুকরো গুলো।পরে দেখা যায়, মহাসাগররে বুকে ডিম্বাকৃত একটি নতুন দ্বীপের সৃষ্টি হয়েছে।

কিন্তু হঠাত্‍ জেগে ওঠা নতুন এই দ্বীপের স্থায়িত্বকাল কতদিন? অগ্ণুৎপাত বিশেষজ্ঞ হিরোশি ইটোর মতে, নতুন এই দ্বীপ যেমন ক্ষয়ের ফলে অচিরেই নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে পারে,তেমনি আবার টিকেও যেতে পারে চিরকালের জন্য ।বিজ্ঞানীদের দাবি,প্রশান্ত মহাসাগরীয় আগ্ণেয়র জন্য মেখলার অর্ন্তগত জাপান ভূখণ্ডের এই অংশে অগ্ণুৎপাতের ফলে নতুন দ্বীপরে সৃষ্টি এবং বিনাশ কোনও নতুন ঘটনা নয়৷তবে এই নতুন দ্বীপের নামকরণ নিয়ে এখনই চিন্তাভাবনা করতে রাজি নয় জাপান সরকার৷ তাদের দাবি, সদ্যোজাত দ্বীপটির গঠন সম্পূর্ণ হলেই তাকে জাপানের মূল ভূখণ্ডরে অর্ন্তগত করার বিষয়ে ভাববে তারা৷ তখনই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে এর নামকরন নিয়ে।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন