রম্য রচনা

সোমবার | ২৩ জুলাই, ২০১৮ | ৮ শ্রাবণ, ১৪২৫ | ৯ জিলক্বদ, ১৪৩৯

কৌতুক রঙ্গ

কৌতুক রঙ্গ

মামা-ভাগ্নে

মামা পেশায় হুজুর। কিন্তু তার ভাগ্নেটা একদম নামাজ পড়ে না। মামা ভাগ্নেকে অনেক বুঝালেন। কিছুতেই কাজ হলোনা। শেষমেষ মামা ভাগ্নেকে বললেন।

মামাঃ তুই এখন থেকে নামাজ পড়লে তোকে ৫টাকা করে দেব।

ভাগ্নেতো কথা শুনে মহা খুশি। সে খুশিমনে নামাজ পড়তে গেল। নামাজ পড়ে এসে চাচাকে বললো,

ভাগ্নেঃ মামা, নামাজ পড়ে এসেছি। এবার টাকা দাও।

চাচাঃ কিসের টাকা? তু্ই নামাজ পড়ছিস নেকী পাইছিস। তোকে আবার টাকা দেব কেন?

ভাগ্নেঃ মামা, আমি জানতাম তুমি এইরকম করবা। আমিও কম যাইনা। আমি নামাজ ঠিক-ই পড়ছি। কিন্তু ওজু করিনাই।

হেডফোন

বিমান চলছে। এক পেসেঞ্জার হঠাৎ করে হুরমুর করে প্লেনের চালকের ঘরে ঢুকে পড়লো। চালকতো অবাক। চালককে আরোও অবাক করে দিয়ে লোকটা চালকের হেডফোনটাকে ছিনিয়ে নিল।

তারপর লোকটা বলল, “হারামজাদা! আমরা টাকা দেব আর তুমি এইখানে বইসা কানে হেডফোন লাগাইয়া গান শুনবা!!!”

মুলার ক্ষেত

করিম মিয়ার মুলার ক্ষেত। পোকায় খেয়ে শেষ করে দিচ্ছে। তাই সে গেল কৃষি বিশেষজ্ঞের কাছে।

করিম মিয়াঃ ডাক্তারসাব, আমার মুলার ক্ষেততো পোকায় খেয়ে শেষ করে দিল। এখন কি করি?

কৃষি বিশেষজ্ঞঃ আপনি এক কাজ করুন। পুরো ক্ষেতে নুন ছিটিয়ে দিন।

করিমমিয়াঃ আহা! কি পরামর্শ? নুনছাড়াই খেয়ে শেষ করি ফেলাইছে আর নুন দিলেতো কথাই নেই।

সাঁতার

এক যুবক নৌবাহিনীতে ভর্তির জন্য সাক্ষাৎকার দিতে এসেছে।

প্রশ্নকর্তাঃ আপনি কি সাঁতার জানেন?

উত্তরদাতাঃ সাঁতার শেখার সুযোগ হয়ে উঠেনি, স্যার।

প্রশ্নকর্তাঃ তাহলে কি ভেবে আপনি নৌবাহিনীর সাক্ষাৎকার দিতে এসেছেন?

উত্তরদাতাঃ মাফ করবেন, স্যার; তাহলে কি আমি মনে করব যে বিমানবাহিনীর আবেদনকারীরা উড়তে শেখার পর আসে?

গরু

পথচারীঃ এই যে, তুমি যে ভিক্ষা চাইছো, কিভাবে বুঝবো যে তুমি কানা?

ভিক্ষুকঃ এই যে দূরে একটা গরু দেখতাছেন, ওইটা আমি দেখতাছি না।

অপেক্ষা

ডাক্তারঃ আপনার কি হয়েছে?

রোগীঃ ডাক্তার সাহেব আমাকে বাঁচান! আমি মনে হয় ১০ মিনিটের মধ্যে মারা যাবো।

ডাক্তারঃ একটু অপেক্ষা করুন, আমি ২০ মিনিটের মধ্যে ফিরে আসছি।

ডাক্তার ও রোগী

রোগীঃ ডাক্তার সাহেব, আমার খুব খারাপ লাগছে। মনে হয় আমি মরে যাবো।

ডাক্তারঃ কোন চিন্তা করবেন না। ওটা আমার উপর ছেড়ে দিন।

দাঁত তোলা

এক রোগী দাঁতের ডাক্তারের সঙ্গে ভিজিট নিয়ে তর্ক করছে।

রোগীঃ একটা দাঁত তোলার জন্য তিনশ টাকা! এটা তো এক মিনিটের কাজ।

ডাক্তারঃ আপনি চাইলে আমি আরো সময় নিয়ে তুলে দিতে পারি।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


মন্তব্য করুন