সেরা খবর

বৃহস্পতিবার | ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ | ৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ | ২৫ রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » সেরা খবর » রায় কার্যকরের অপেক্ষায় চার নেতার স্বজনেরা

রায় কার্যকরের অপেক্ষায় চার নেতার স্বজনেরা

রায় কার্যকরের অপেক্ষায় চার নেতার স্বজনেরা

১৯৭৫-এর এই দিনে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে হত্যা করা হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পক্ষে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনাকারী জাতীয় চার নেতাকে। ন্যায় বিচারের জন্য সেদিন তাদের পরিবারকে ঘুরতে হয়েছে দ্বারে দ্বারে। আজও আছেন রায় কার্যকরের প্রতিক্ষায়।

স্বপরিবারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার আড়াই মাসের মাথায় রাতের আধাঁরে নির্মমভাবে হত্যা করা হয় তার সহযোদ্ধা বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ, মন্ত্রিসভার সদস্য ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী এবং এ এইচ এম কামরুজ্জামানকে।

হত্যাকাণ্ডের পরদিন, ৪ নভেম্বর লালবাগ থানায় হত্যা মামলা করেন তৎকালীন কারা উপমহাপরিদর্শক আবদুল আউয়াল। মামলায় রিসালদার মোসলেহ উদ্দিনের নাম উল্লেখ করে বলা হয় তাঁর নেতৃত্বে চার-পাঁচজন সেনা সদস্য কারাগারে ঢুকে এ হত্যাযজ্ঞ চালায়।

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর ২০০৪ সালের অক্টোবরে বিচার শেষে রায় দেয় ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালত। মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয় পলাতক আসামি মোসলেহ উদ্দিন, দফাদার মারফত আলী শাহ ও আবুল হাশেম মৃধাকে। ১২ জনকে দেয়া হয় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। পরে ২০১৩ সালে আপিল বিভাগের রায়ে শেষ হয় বিচারকাজ। তবে আসামিদের বেশিরভাগই পলাতক থাকায় রায় কার্যকর হয়নি আজও।

বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক এই চার নেতা যেভাবে কাজ করেছেন তা স্বাধীন দেশের জাতি কখনই ভুলবে না। জাতির ইতিহাসে এই দিন তাই বেদনাবিধুর।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন