Azizul Bashar
মন্তব্য

বুধবার | ১৫ আগস্ট, ২০১৮ | ৩১ শ্রাবণ, ১৪২৫ | ৩ জিলহজ্জ, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » মতামত » মন্তব্য » কীভাবে হবু স্ত্রীর চোখে আপনি হয়ে উঠতে পারেন ‘পারফেক্ট’ পুরুষ

কীভাবে হবু স্ত্রীর চোখে আপনি হয়ে উঠতে পারেন ‘পারফেক্ট’ পুরুষ

কীভাবে হবু স্ত্রীর চোখে আপনি হয়ে উঠতে পারেন ‘পারফেক্ট’ পুরুষ

চলছে বিয়ের মরশুম। সেলিব্রিটি কাপল থেকে পাড়ার দিদি-দাদাদের বিয়ের পিঁড়িতে বসার ছবি এখন সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। আর তা দেখে অনেক ব্যাচেলারেরই মনের সুপ্ত ইচ্ছা খোঁচা দিচ্ছে। দীর্ঘদিনের প্রেম যদি পরিণয়ে বদলে যায়, তাহলে তো কথাই নেই। কিন্তু যাঁরা নতুন করে জীবন সঙ্গী খুঁজছেন, তাঁরা কি জানেন, হবু স্বামীর মধ্যে কোন গুণগুলি চান মহিলারা? কোন বিষয়গুলি পুরুষের প্রতি বাড়িয়ে তোলে আকর্ষণ ও ভালবাসা? কীভাবে আপনার স্পেশাল লেডির চোখে হয়ে ওঠা যাবে ‘পারফেক্ট’ পুরুষ? না জানা থাকলে, বিয়ের মরশুমে জেনে রাখা ভাল।

আর্থিক সিদ্ধান্ত:

বর্তমানে অনেক মহিলাই বিয়ের আগে নিজের পায়ে দাঁড়াতে চান। আর্থিকভাবে স্বাধীন ও প্রতিষ্ঠিত হয়ে তবেই স্বামীর সঙ্গে ঘর-সংসার করার পরিকল্পনা করেন। সেক্ষেত্রে তাঁরা চান, তাঁদের উপার্জনের অর্থ তাঁরা কীভাবে খরচ করবেন, সে সিদ্ধান্ত স্বামী নয়, তাঁরাই নেবেন। স্বামী-স্ত্রী দুজনেই সংসার চালাবেন, এ নিয়ে মহিলাদের কোনও সমস্যা নেই। কিন্তু স্ত্রী যদি বাবা-মা, বন্ধু-বান্ধব অথবা নিজের জন্য অর্থ ব্যয় করেন, তাহলে যেন স্বামী তাতে নাক গলাতে না আসেন। তাই হবু স্বামীরা স্ত্রীর উপার্জিত অর্থ নিয়ে মাথা না ঘামালেই সংসারে শান্তি বজায় রাখবে।

পেশাদারি জীবন:

একজন পুরুষের কাছে তাঁর পেশাদারি জীবন যতটা গুরুত্বপূর্ণ, একজন মহিলার ক্ষেত্রেও বিষয়টা একইরকম। তাই স্ত্রীর কাজকে খাটো করা একেবারেই না-পসন্দ নারীর। অনেক পড়াশোনা করে, কাঠখড় পুড়িয়ে তিনিও জীবনে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন। তাই বিয়ের পর তাঁর পেশার গুরুত্ব কমে যাক, এমনটা মোটেই চান না তিনি। যদি কোনও ক্ষেত্রে সংসারের থেকে পেশাকে স্ত্রী এগিয়ে রাখতে চান, তাহলে পুরুষদের তা মেনে নেওয়াই হবে বুদ্ধিমানের কাজ।

স্বামী হোক স্বাধীনচেতা:

বিয়ের আগে অনেক পুরুষই তাঁর পার্টনারের কাজের প্রশংসা করেন। কিন্তু সংসার শুরুর পরই পালটে যায় ছবিটা। যাতে অনেক নারীই হতাশ হয়ে পড়েন। মহিলা চান, তাঁর জীবনের পুরুষটি যেমন তাঁকে বিভিন্ন বিষয়ে গাইড করবেন, তেমনই তাঁর চিন্তাভাবনা, সিদ্ধান্তগুলিকেও সম্মান করবেন। স্ত্রীর অতীত নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করে বর্তমানটাকে নষ্ট করবেন না। স্ত্রী যেমন স্বামীর অতীত টেনে সম্পর্কে জটিলতা বাড়াবেন না, তেমনটা প্রত্যাশাই স্বামীর থেকে রাখেন মহিলা।

অ্যাডভেঞ্চারের নেশা:

অনেক মহিলাই একঘেয়ে জীবনে মাঝে মধ্যে ব্রেক ভালবাসেন। ব্যাগ গুছিয়ে অ্যাডভেঞ্চারে ভরপুর সফরে বেরিয়ে পড়তে চান। সেক্ষেত্রে পার্টনারটি তেমন না হলে সমস্যা। তাই বিয়ের আগে ভালভাবে লেডি লাভের মনের কথা জেনে নিন।

অপরিবর্তিত:

বাপের বাড়ি ছেড়ে একটি মেয়ে চোখে অনেক স্বপ্ন নিয়ে নতুন এক সংসারে এসে পড়ে। যেখানে অচেনা মানুষদের সঙ্গে আস্তে আস্তে মানিয়ে নেয় সে। কিন্তু তারও তো কিছু প্রত্যাশা থাকে। স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তাঁকে পালটে ফেলবে না, তার ইচ্ছেগুলোর হত্যা করবে না, এমনই প্রত্যাশা তার। সাত পাকে বাঁধা পড়ার আগে ঠিক যেমনটি সে ছিল স্বামী তাকে সেভাবেই ভালবাসবে, এমনটাই চান মহিলারা।

সৎ পুরুষ:

বিয়ের সময় পার্টনারের হাত ধরে প্রতিশ্রুতি দেন, তাঁর প্রতি চিরকাল সৎ থাকার। স্বামী ও স্ত্রী উভয়ক্ষেত্রেই বিষয়টি প্রযোজ্য। কিন্তু বর্তমানে দেশে বিবাহ বিচ্ছেদের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। তাই স্ত্রীর মতো স্বামীর কর্তব্য তাঁর প্রতি সৎ থাকা। তবেই আপনি তাঁর চোখে হয়ে উঠতে পারবেন পারফেক্ট পুরুষ।

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


মন্তব্য করুন