Azizul Bashar
তারকা জীবনী

বৃহস্পতিবার | ১৬ আগস্ট, ২০১৮ | ১ ভাদ্র, ১৪২৫ | ৪ জিলহজ্জ, ১৪৩৯

প্রচ্ছদ » বিনোদন » তারকা জীবনী » বিয়ের আসরে পুলিশি হানা, বিয়ে ভাংল মিঠুন পুত্র মিমোর

বিয়ের আসরে পুলিশি হানা, বিয়ে ভাংল মিঠুন পুত্র মিমোর

বিয়ের আসরে পুলিশি হানা, বিয়ে ভাংল মিঠুন পুত্র মিমোর

চারিদিকে আলো আর আলো, বিয়ে বাড়ির সাজ, সানাইয়ের সুর বাজজে উটির হোটেলে, কারণ বিয়েটা যে মিঠুন পুত্র মিমোর। সে যতই ধর্ষণে অভিযুক্ত হোক না কেন তাতে কি হয়েছে? এক এক করে বিয়ে বাড়িতে আসতে শুরু করেছে কনে পক্ষ ।আসতে শুরু করে অতিথিরাও । সব ঠিক ঠাকই চলছিল। কিন্তু অভিনেতার রিয়েল লাইফে একটু অভিনয় থাকবে না তা কি করে হয়? বিয়ে শুরুর আগেই বিয়ে বাড়িতে এসে হাজির হয় পুলিশ। ঠিক যেন সিনেমার মত।

উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই দিল্লির রোহিণী আদালতের নির্দেশ মেনে জনপ্রিয় অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর ছেলে মহাক্ষয় ওরফে মিমোর বিরুদ্ধে ধর্ষণ, প্রতারণার মামলা রুজু করা হয়। প্রতারণার মামলা রুজু হয় মিঠুন চক্রবর্তীর স্ত্রী যোগিতা বালির বিরুদ্ধেও। আর এরপরেই বম্বে হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন করেন তাঁরা। তাঁদের সেই আর্জিই খারিজ করে দিয়েছে বোম্বে হাইকোর্ট। তবে তাঁরা দিল্লি আদালতে আগাম জামিনের আবেদন করতে পারেন বলে জানিয়েছেন বোম্বে হাইকোর্টের বিচারপতি অজয় গডকড়ী।

শনিবার অর্থাৎ ৭ জুলাই বিয়ে হওয়ার কথা ছিল মিমোর। তবে আশঙ্কা ও ছিল যে বিয়ের আগেই গ্রেফতার করা হতে পারে মিমোকে। তবে গ্রেফতার না করা হলেও বিয়েটা আর করা হলনা মিমোর । বিয়ের আসরে পুলিশ এসে জিজ্ঞাসাবাদ করে মিমো এবং তাঁর মা যোগিতা বালিকে। এমত অবস্থায়, বেঁকে বসেন পাত্রী পক্ষ। প্রযোজক সুভাষ শর্মার মেয়ে মাদালসা শর্মার সঙ্গে বিয়ের কথা ছিল মিঠুন চক্রবর্তীর ছেলে মহাক্ষয় চক্রবর্তীর। প্রথমে বিয়েতে রাজি হলেও বিয়ে বাড়িতে এমন হ্যারাস মেন্টে নাজেহাল হয়ে যান পাত্রী পক্ষ। বিয়ের আসর ছেড়ে চলে যান তাঁরা।

প্রসঙ্গত, অভিযোগকারিণীর আইনজীবী রবি সোনি জানিয়েছেন, ”মহাক্ষয় গত ৪ বছর ধরে চেনেন অভিযোগকারিনীকে। মিমো তাঁর উপর যৌন নির্যাতন করেছেন এবং তাঁর সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। তাঁর পানীয়তে ঘুমোর ওষুধ মিশিয়ে তাঁকে ধর্ষণ করা হয়েছে। পাশাপাশি মিমো আমার মক্কেলকে বিয়ের প্রতিশ্রুতিও দিয়ে এসেছিলেন। এমনকি বিয়ের জন্য মিমোর সঙ্গে আমার মক্কেলের ঠিকুজি কুষ্ঠিও মেলানো হয়। তবে পরে আমার মক্কেলকে বিয়ে করতে পুরোপুরি অস্বীকার করেন মিমো। তিনি সন্তান সম্ভবা হয়ে পড়লে তাঁকে জোর করে গর্ভপাত করান মহাক্ষয় ও তাঁর মা যোগিতা বালি।”

সব সিনেমায় হ্যাপি এন্ডিং তো আর হয়না। কোন কোন সিনেমায় ট্র্যাজিক এন্ডিং ও হয়। আর সেটাই বোধহয় হল মিমোর ক্ষেত্রেও।

 

 

বিসিসি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


মন্তব্য করুন